ASCENT (Advancing Skill Creation to ENhance Transformation)

 ASCENT ইউরোপীয় ইউনিয়নের একটি নতুন প্রকল্প যার প্রধান উদ্দেশ্য হলো , দুর্যোগ সহনীয় সমাজ গঠনের লক্ষে গবেষণা ও উদ্ভাবনী কাজের সক্ষমতা অর্জন ও বিদ্যমান পরিস্থিতির উৎকর্ষ সাধন। এই প্রকল্পের আওতায় রয়েছে বিভিন্ন প্রশিক্ষণ, দক্ষতা বৃদ্ধি, নেতৃত্ব সৃষ্টি, আন্তর্জাতিক সহযোগিতা জোরদার এবং বিশ্ববিদ্যালয় - ইন্ডাস্ট্রি অংশীদারিত্ব বৃদ্ধি। এটি উচ্চশিক্ষাঙ্গনে দুর্যোগ সহনীয় গবেষণাকে আরো শক্তিশালী করবে এবং বর্তমান চাহিদা পূরণের লক্ষে দক্ষ জনবল তৈরীকরতে সহায়ক ভূমিকা রাখবে।এর ফলশ্রুতিতে ব্যক্তি এবং প্রতিষ্টান দুর্যোগ সম্পর্কিত গবেষণায় আরো দক্ষ হয়ে উঠবে যা দুর্যোগ ঝুঁকি বহুলাংশে কমিয়ে আনবে।

ASCENT ইরাসমাস + এর অর্থায়নে তিন বছর মেয়াদি একটি প্রকল্প। প্রকল্পটি বাস্তবায়নে আছে ইউরোপ ও এশিয়ার ১৩টি বিশ্ববিদ্যালয়ের সমন্বয় গঠিত একটি সংঘ, যার মধ্যে রয়েছে যুক্তরাজ্য, সুইডেন, ইস্তোনিয়া, লিথুয়ানিয়া, বাংলাদেশ, শ্রীলংকা এবং থাইল্যান্ড। প্রকল্পটিকে নেতৃত্ব দিচ্ছে, যুক্তরাজ্যের হাডার্সফিল্ড বিশ্ববিদ্যালয়।

সামগ্রিকভাবে প্রকল্পটিতে রয়েছে, উচ্চশিক্ষায় দুর্যোগ সহনশীলতা সম্পর্কিত গবেষণা ও উদ্ভাবনীমূলক কাজের বর্তমান প্রেক্ষাপট ও সমস্যা চিহ্নিতকরণ এবং উদ্ঘাটিত সমস্যা ও ঘাটতি মেটাতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো , গবেষণার জন্য প্রয়োজনীয় অবকাঠামো উন্নয়ন , বিশ্বমানের গবেষক তৈরী, উদ্ভাবনীমূলক গবেষণা পরিচালনা, আন্তর্জাতিক সহযোগিতা বৃদ্ধি, বিশ্ববিদ্যালয় / ইন্ডাস্ট্রি অংশীদারিত্ব বৃদ্ধি ইত্যাদি। এই প্রোকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে জনগণের সাথে শিক্ষা ও গবেষণাধর্মী প্রতিষ্ঠানের নিবিড় সম্পর্ক তৈরী হবে , যার ফলশ্রুতিতে সমাজমুখী শিক্ষায় আমরা বিশ্বকে আরেক ধাপ এগিয়ে নিয়ে যাবে।

উল্লেখ্য যে, ASCENT প্রকল্পটি সেন্দাই ফ্রেমওয়ার্কে বর্ণিত উদ্দেশ ও লক্ষের সাথে সঙ্গতি রেখে প্রনয়নিত হয়েছে। ২০১৫ সালে জাপানের সেন্দাই শহরে ১৮৭ টি দেশের সমর্থনে দুর্যোগ ঝুঁকিহ্রাস এবং বিপদাপন্ন জনগোষ্ঠীর সহনশীলতা বৃদ্ধি ও আপদ মোকাবেলায় সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য এ চুক্তি সাক্ষরিত হয় যার সময়কাল ধরা হয়েছে ২০১৫-২০৩০। এই ফ্রেমওয়ার্ক অনুযায়ী, দুর্যোগ ঝুঁকিহ্রাসের প্রাথমিক দায়িত্ব রাষ্ট্রের। কিন্তু রাষ্ট্রের পাশাপাশি এ দায়িত্ব সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থা , দাতব্য প্রতিষ্ঠানসহ সকল সচেতন নাগরিকের। যেহেতু দুর্যোগ ঝুঁকি হ্রাস একটি আন্তর্জাতিক বিষয় সুতরাং এক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক , আন্তরাষ্ট্রীয় ও আঞ্চলিক পর্যায়ে ভুমিকা বিশেষ ভাবে গুরুত্বপূর্ণ।

ASCENT প্রকল্পের প্রথম ধাপে রয়েছে, বাংলাদেশ, শ্রীলংকা এবং থাইল্যান্ডের উচশিক্ষাঙ্গনে দুর্যোগ সহনশীলতা সম্পর্কিত গবেষণার বর্তমান সক্ষমতা বিশ্লেষণ। এই বিশ্লেষণ প্রকল্পটির ভবিষত কার্যাবলী নির্ধারণে অগ্রণী ভিমিকা রাখবে। প্রকল্পটি সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানতে যোগাযোগ করুন- অধ্যাপক দিলান্থিনি আরমানতুঙ্গা (This email address is being protected from spambots. You need JavaScript enabled to view it.) এবং অধ্যাপক রিচার্ড হাই (This email address is being protected from spambots. You need JavaScript enabled to view it.) অথবা ভিসিট করুন www.disaster-resilience.net/ascent.

 

ASCENT project consortium

Programme Countries (Europe)

University of Huddersfield, United Kingdom (Lead Partner)

University of Central Lancashire, United Kingdom

Lund University, Sweden

Mid-Sweden University, Sweden

Vilnius Gediminas Technical University, Lithuania

Tallinn University of Technology, Estonia

Partner Countries (Asia)

University of Moratuwa, Sri Lanka

University of Colombo, Sri Lanka

University of Ruhuna, Sri Lanka

Naresuan University, Thailand

Chiang Mai University, Thailand

University of Dhaka, Bangladesh

BRAC University, Bangladesh

Patuakhali Science and Technology University, Bangladesh

  

ASCENT প্রকল্পটির বাস্তবায়নে অর্থনৈতিক সহায়তা প্রদান করছে ইউরোপীয় কমিশন। তবে এই প্রকল্পের সাথে যুক্ত ব্যক্তিবর্গের কর্মকান্ড, গবেষণা কিংবা যেকোনো ধরণের মতামতের সাথে কমিশনের কোনো সংশ্লিষ্ঠতা নেই এবং এ সংক্রান্ত কোনো বিষয়ে কমিশন কারোকাছে জবাবদিহি নয়।

The European Commission support for the production of this publication does not constitute an endorsement of the contents which reflects the views only of the authors, and the Commission cannot be held responsible for any use which may be made of the information contained therein